শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:৪৪ পূর্বাহ্ন

মাধবদী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে আনোয়ার হোসেন

প্রতিবেদকের নাম / ৪৮৭ শেয়ার
প্রকাশিত : বুধবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২০

একাদশ জাতীয় সংসদ ও উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিঙ্কুশ বিজয়ের পর পৌর নির্বাচনের ঘোষণায় চাঙা ভাব বিরাজ করছে নরসিংদীর মাধবদী পৌরসভার দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে। আগামী পৌর নির্বাচনেও ভালো ফলের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী মাধবদী পৌরসভার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে বিএনপি নির্বাচনে অংশ গ্রহণ না করলে দলীয় মনোনয়ন পেলে জয় অনেকটাই নিশ্চিত জেনে মাধবদী পৌর মেয়র হওয়ার দৌড়ে নেমেছেন স্থানীয় নেতারা। মনোনয়ন দৌড়ে যারা রয়েছেন তাদের মধ্যে তরুন সমাজের অহংকার হিসেবে পরিচিত নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন (আনোয়ার কমিশনার) তৃণমূল জড়িপে এগিয়ে আছেন। সর্বমহলেই রয়েছে তার ব্যাপক গ্রহন যোগ্যতা। দলীয় নেতাকর্মীদের ইচ্ছার প্রাধান্য দিয়ে তিনি এবারও মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়েছেন।

পরিবারিক ভাবে আওয়ামী পরিবারের সন্তান হিসেবে ছাত্রজীবন থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হন। তার পিতা মরহুম হাজী মো: আবু ছাইদ মাধবদী পৌর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তাছাড়াও তিনি জনগণের ভোটে ৫ বার ইউপি সদস্য নির্বাচিত হন। মা মরহুমা সুফিয়া বেগম ছিলেন নরসিংদী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা। বড় বোন মোসা: লাভলী আক্তার বদরুনেছা কলেজ শাখা ছাত্র লীগের আহবায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি ভৈরব উপজেলা আ’লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা এবং ভৈরব পৌর কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র। ছোট ভাই মো: জাকারিয়া মাধবদী পৌরসভার বর্তমান পরিষদের নির্বাচিত কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। নরসিংদী সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সফল সভাপতি হিসেবে ব্যাপক পরিচিত। ছাত্র জীবন থেকে আওয়ামী ঘরাণার রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হওয়া আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন মাধবদী কলেজে পর পর দুইবার জিএস নির্বাচিত হন । মাধবদী পৌরসভা গঠিত হওয়ার পর ২০০৩ সালে অনুষ্ঠিত পৌরসভার প্রথম নির্বাচনে তিনি ২ নং ওয়ার্ডের কমিশনার নির্বাচিত হন। বর্তমানে তিনি জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

দলীয় বিভিন্ন কর্মসূচিতে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে যথাযথ ভাবে পালন করেছেন। তার রয়েছে সুবিশাল কর্মীবাহিনী। আন্দোলন সংগ্রামে তিনি অগ্রভাগে থেকে নেতৃ দিলেও মনোনয়নের ক্ষেত্রে তাকে রাখা হয় পিছনে। দলীয় মনোনয়নের ক্ষেত্রে রাজপথের এই লড়াকু সৈনিককে বার বার করা হয়েছে বঞ্চিত।

তিনি ২০১১ সালে মাধবদী পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হলেও নির্বাচনের মাত্র ৭ দিন আগে দলীয় নেতাদের অনুরোধে তিনি নির্বাচন থেকে সরে যান। তিনি দলীয় স্বার্থে নির্বাচন থেকে সরে আসলেও দলের জেলা পর্যয়ের প্রভাবশালী নেতারা তাকে দেওয়া কথা রাখেননি। পরবর্তী নির্বাচনেও তিনি প্রার্থী হলে তাকে দেওয়া কথা না রেখে অন্য একজনকে দলীয় সমর্থন দেন। বিগত জেলা পরিষদ ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও তাকে বঞ্চিত করা হয় বলে নেতাকর্মীরা জানান।

ক্ষমতাশীন আওয়ামী লীগ দলীয় প্রধান বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা দিয়েছেন দলের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর এই ঘোষণায় নেতাকর্মী উজ্জ্বীবিত হয়। তারা মনে প্রাণে এই ভেবে খুশি হয় যে, তাদের প্রিয় নেতা, তাদের আনোয়ার ভাইকে মূল্যায়ন করার সময় এসেছে। এবার দল তাদের নেতার ত্যাগের মূল্যায়ন করে তাকে দলীয় মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত করা হবে না। তাই নেতাকর্মীরা মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী হওয়ার জন্য আনোয়ার হোসেনকে অনুরোধ জানায়। নেতাকর্মীদের মতামতের প্রাধান্য দিতে আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন (আনোয়ার কমিশনার) আসন্ন পৌর নির্বাচনে মাধবদী পৌরসভার মেয়র পদে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়েছেন বলে জানান।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, নেতাকর্র্মীরা আমার শক্তি। আমি সব সময় আমার নেতাকর্মীদের মতামতের গুরুত্ব দেই। নেতাকর্মীরা চায় আমি পৌর নির্বাচনে অংশগ্রহন করি। তাদের ইচ্ছাকে গুরুত্ব দিয়ে আমি দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী। দলীয় হাইকমান্ড চেয়ারম্যান পদে আমাকে যোগ্য মনে করে মনোনয়ন দিলে আমি তাদের আস্থা রাখতে পারব ইনশাল্লাহ।


এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
Developed by BongshaiIT.com
ব্রেকিং নিউজ
ব্রেকিং নিউজ