শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০১:৫৬ পূর্বাহ্ন

পাইকুড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে যারা হচ্ছেন প্রার্থী

শফিক আহমেদ ভূইয়া / ৫৯৩ শেয়ার
প্রকাশিত : সোমবার, ৫ অক্টোবর, ২০২০

দলের অন্যান্য হাইকমান্ডের কর্মকাণ্ডের সঙ্গে আলোচনায় এবার উঠে আসছে আসন্ন স্থানীয় সরকারের তৃণমূলের দুটি বৃহৎ নির্বাচনের ইস্যু। একটি পৌরসভা, অন্যটি ইউনিয়ন পরিষদের সাধারণ নির্বাচন। যথাক্রমে এ দুটি নির্বাচন আগামী ডিসেম্বরে এবং নতুন বছরের মার্চে শুরুর কথা রয়েছে। এ দুটি নির্বাচন তৃণমূলের ভিত্তি হওয়ায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরে চলছে এ নিয়ে জোর প্রস্তুতি। তীক্ষ্ম নজরও রাখছে দলীয় হাইকমান্ড।

ইতোমধ্যে নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থীরা নিজেদের সক্ষমতা কেন্দ্রের কাছে তুলে ধরতে নির্বাচনী মাঠে সীমিত আকারে প্রচার শুরু করেছেন। লক্ষ্য কেন্দ্রীয় হাইকমান্ডকে বোঝানো পৌর ও ইউপির দলীয় সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের বাইরে যোগ্যতায় তারাও যেন কোনো অংশে পিছিয়ে নেই। স্ব-স্ব স্থান থেকে কর্মীকে সক্রিয় করতে তাই এখন থেকেই কোমর বেঁধে নির্বাচনী এলাকায় নেমে পড়েছেন। তৃণমূলের নীতিনির্ধারকরাও কর্মীদের ওপর তীক্ষ্ম নজর রাখছেন। কোন প্রার্থী যোগ্যতায় বিপরীত রাজনৈতিক দল থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এগিয়ে থাকবেন।

১৩ নং পাইকুড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের হাওয়া বইতে শুরু করেছে। দলীয় মনোনয়ন পেতে সম্ভাব্য প্রার্থীরা গণসংযোগ, দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। বিভিন্ন দলের মধ্যে এখন পর্যন্ত ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতাকর্মীরাই বেশি সরব। তারা গ্রামাঞ্চলে ঘুরে ভোটারদের পাশাপাশি সমাজ-সামাজিকতা, দলের অবস্থা, কর্মীদের খোঁজখবর নিচ্ছেন।

যারা দলের জন্য নিবেদিত, আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ও সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত আছে এমন যোগ্যদের দলীয় মনোনয়নে প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে এমনটি জেনে দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী সম্ভাব্য প্রার্থীরা এগিয়ে চলেছেন। কার কেমন রাজনৈতিক ক্যারিয়ার, পারিবারিক খোঁজখবর সবকিছুর চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ।
তবে দলীয় মনোনয়ন প্রার্থীদের চেয়ে সতন্ত্র প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ বেশি লক্ষনীয় বলে দাবি করছেন ভোটারগণ।

১৩নং পাইকুড়া ইউনিয়নে এবার আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন মনোনয়ন প্রত্যাশী চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন। তবে দলীয় কর্মীরা আশা করছে পরীক্ষিত ও দলের জন্য নিবেদিত এমন কাউকে মনোনয়ন দেয়া হোক। কোনো বিতর্কিত, অন্য রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সখ্য আছে এমন কাউকে যেন মনোনয়ন দেয়া না হয়।

তবে ১৩ নং পাইকুড়া ইউনিয়নে এবার নির্বাচন ভিন্ন খাতে মোর নিয়েছে । দলীয় প্রার্থীদের চেয়ে এগিয়ে থাকবে সতন্ত্র প্রার্থীরা। এক অনুসন্ধানে জানা যায়, আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী বেশ কয়েকজন প্রার্থী। জানা গেছে, এবার মনোনয়ন প্রত্যাশী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বদরুল ইসলাম,রয়েছে, সাবেক চেয়ারম্যান ইসলাম উদ্দিন, বর্তমান চেয়ারম্যান হুমায়ূন চৌধরী, তোফায়েল রেজা সবুজ তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক এবং সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য।
আওয়ামী লীগ নেতা, নওপাড়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক খোকন।
সতন্ত্র প্রার্থী থেকে নির্বাচন করার করতে পারেন, ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক আবুল বাশার ভূইয়া ও কেন্দুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক হানিফ নেওয়াজ।

আবুল বাশার জানান, আমি মনে করি যুব সমাজেই পারবে সমাজকে বদলে দিতে। তাই আমি যুব সমাজের পক্ষে,আগামী ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করে ১৩নং পাইকুড়া ইউনিয়ন থেকে মাদক ও জুয়া বন্ধ করতে সকলের সহযোগিতা চাই।

হানিফ নেওয়াজ জানান, কেন্দুয়া উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের মধ্যে আমার প্রিয় পাইকুড়া ইউনিয়নকে নিয়ে যেতে চাই কেন্দুয়া উপজেলার মানচিত্রে উন্নয়নের সর্বোচ্চ শিখরে। পাইকুড়া বাসী চাই পরিবর্তন এবং তরুন নেতৃত্ব। পাইকুড়া ইউনিয়নে আমি কোন রাজনীতিবিদ হতে আসে নি আমি এসেছি জনগণের সেবক হতে।আমি কথা দিচ্ছি সব সময় নীতি এবং আদর্শকে বুকে আখড়ে রেখে জনতার পাশে থাক।আমার পরিচয় হউক আমি আপনাদের-ই লোক।
ধারাবাহিক প্রতিবেদন চলবে। বিঃ দ্রঃ অনেকের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা হলেও যোগাযোগ করা যায় নি, যে কারনে ছবি সংগ্রহ করা যায় নি।


এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
Developed by BongshaiIT.com
ব্রেকিং নিউজ
ব্রেকিং নিউজ